সৈয়দপুর কলেজের অধ্যক্ষের অপসারণের দাবিতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

 
 

সিসি নিউজ, ১৬ সেপ্টেম্বর ।। নানা অনিয়ম ও নারীঘটিত ঘটনার অভিযোগে নীলফামারীর সৈয়দপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) সাখাওয়াৎ হোসেন খোকনের অপসারণের দাবিতে শিক্ষার্থীরা ক্লাস, প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষা বর্জন ও বিক্ষোভ করেছে। আজ সোমবার সকালে ছাত্রলীগ সৈয়দপুর কলেজ শাখা ও সাধারণ শিক্ষার্থীরা কলেজ চত্বরে বিক্ষোভ করে। এদিকে, শিক্ষার্থীদের দাবির মুখে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে কলেজটির গর্ভনিং বডির সভাপতি ও সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার এস এম গোলাম কিবরিয়া।
জানা গেছে, সৈয়দপুর কলেজের অধ্যক্ষ মো. সাখাওয়াৎ হোসেন খোকন দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে নানা রকম অনিয়ম, দুর্নীতি ও স্বেচ্ছাচারিতা করে আসছে। এছাড়া ওই অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে কলেজের এক শিক্ষিকাকে নিয়ে অনৈতিক কর্মকান্ডের অভিযোগ তোলা হয়। এসব কারণে বিক্ষোভকারী শিক্ষার্থীরা হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, এরূপ শিক্ষকের কাছে আমরা শিক্ষা নিতে চাই না। তাকে অপসারণ করা না হলে কলেজের সব কর্মকান্ড বন্ধ করে দেওয়া হবে। এ সময় শিক্ষার্থীরা কলেজ গেটসহ রাস্তায় বেড়িগেট দিয়ে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করে অধ্যক্ষের দ্রুত অপসারণের দাবিতে নানা শ্লোগান দেয়। এছাড়াও আজকের দ্বাদশ শ্রেণির তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ের প্রাক নির্বাচনী পরীক্ষা বর্জন করে শিক্ষার্থীরা। এ সময় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের নেতৃত্বে শিক্ষার্থীরা কলেজে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে। পরে এ খবর পেয়ে কলেজের গর্ভনিং বডির সভাপতি ও সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার এস. এম. গোলাম কিবরিয়া কলেজ গিয়ে বিক্ষোভকারী শিক্ষার্থীদেও শান্ত করেন এবং তাদের দাবিদাবার বিষয়গুলো শুনেন। এরপর তিনি শিক্ষার্থীদেও দাবির মুখে ঘটনা তদন্তে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) পরিমল কুমার সরকারকে প্রধান করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেন। এ কমিটির তদন্ত কমিটির অন্যান্যরা হলেন, সৈয়দপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার রেহেনা ইয়াসমীন ও সৈয়দপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) আবুল হাসনাত খান। এ কমিটিকে আগামী পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।
এদিকে, সৈয়দপুর সরকারি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ সাখাওয়াৎ হোসেন খোকন সোমবার দুপুরে তার শহরের বঙ্গবন্ধু সড়কের বাসায় এক সংবাদ সম্মেলন করেন। এ সময় তিনি তার বিরুদ্ধে আনিত সকল অভিযোগ অস্বীকার করেন । তিনি বলেন একটি স্বার্থান্বেষী মহল নানা কারণে আমার প্রতি ঈর্ষান্বিত হয়ে সমাজে আমাকে হেয় প্রতিপন্ন ও মানসম্মান ক্ষুন্ন করতে ওই অপপ্রচার চালায়। এ ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিবেন বলে জানান তিনি।

Print Friendly, PDF & Email

 
 
 
 
 
 
 
Mature Webcam Live Cams Telegraph Theme