চিলমারীতে নেশাগ্রস্থ যুবকের হাতে শিশু হত্যা

 
 

চিলমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি ।। কুড়িগ্রামের চিলমারীতে মাদ্রাসা পড়ুয়া শিশুকে হত্যা করলো নেশাগ্রস্থ এক যুবক। শিশুটি উপজেলা হাটিথানা এলাকার আঃ কাদের সন্তান। শিশু শাকিল উপজেলা বহরেরভিটা এলাকার আলহাজ্ব মরহুম রজব উদ্দিন নূরাণী ও হাফিজিয়া মাদ্রাসার ছাত্র শাকিল (১০)।)

প্রত্যক্ষদর্শীরা ছাড়াও গ্রামবাসী রফিয়াল, জোবায়ের, হাফিজ উদ্দিন ও জোবাইদুল ইসলাম ও মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা জানান, ঘটনার দিন সোমবার প্রতিদিনের মতো সকালে শাকিল মাদ্রাসায় আসে। তখন পর্যন্ত মাদ্রাসার হুজুর মোঃ শাহাজালাল মাদ্রাসায় আসেনি। এ সময় বহরের ভিটা গ্রামের মৃত সামছুল হকের গাঁজায় আসক্ত নেশাগ্রস্থ পুত্র মোঃ রেজাউল করিম রেজা (৩৫) মাদ্রাসাটির দরজায় এসে উঁকিঝুঁকি দিচ্ছিল। শাকিল উক্ত যুবককে বলে, আপনাকে দেখলে সকল ছাত্র ভয় পায় এখান থেকে চলে যান। কথাটা বলাই শাকিলের জন্য কাল হয়ে দাঁড়ায়। তখন নেশাগ্রস্থ রেজা শাকিলকে ক্লাশ থেকে টেনেহিঁচড়ে বের করে নেয়।

শাকিলের সহপাঠী জাহিদ, সারা খাতুন সহ অনেকে জানায়, রেজা শাকিলকে ক্লাশ রুম থেকে টেনেহিঁচড়ে বেড় করে নিয়ে প্রথমে তার পা ধরে শূন্যে কিছুক্ষণ ঘুড়ায়। এরপর মাদ্রাসা সংলগ্ন মিল চাতালের দক্ষিন পূর্ব পাশে নিয়ে গিয়ে সকল সহপাঠীর সাামনেই শাকিলের মাথা একটি ইটের উপরে রেখে, আরেকটি ইট দিয়ে থেঁতলিয়ে দেয়।

এ সময় ছাত্র-ছাত্রীদের চিৎকার শুনে এলাকার মান্নার ছেলে রেজাউল দৌঁড়ে এসে রেজাকে ধরে ফেলে। অতঃপর গ্রামবাসীরা এসে রেজাকে চাতাল সংলগ্ন একটি গাছের সাথে বেঁধে আটকিয়ে থানায় সংবাদ দেয়। এবং গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় গ্রামবাসীরা শাকিলকে চিলমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। সেখানে কর্তব্যরত ডাক্তার শাকিলের প্রাথমিক চিকিৎসা করে দ্রুত রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার জন্য পরামর্শ দেয়। রংপুর নিয়ে যাওয়ার পথে এ্যাম্বুলেন্সই শাকিল মৃত্যুর কোলে ঢলে পরে। সন্তানের নির্মম মৃত্যুর খবর শুনে শাকিলের বাবা-মা বাকরুদ্ধ হয়ে গেছেন।

এ ব্যাপারে চিলমারী থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ আমিনুল ইসলাম জানান, অভিযুক্ত রেজাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণের প্রক্রিয়া চলছে।

জনপ্রাণের ১৬তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত

কুড়িগ্রামের চিলমারী থেকে প্রকাশিত সাপ্তাহিক জনপ্রাণ পত্রিকার ১৬তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত। দিবসটি উপলক্ষে সোমবার বিকালে পত্রিকার পক্ষ থেকে কেক কাটা ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। অফিস কার্যালয় পত্রিকার প্রকাশক সহ-অধ্যাপক আবু হানিফার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার এ ডব্লিউ এম রায়হান শাহ। বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ জাকির হোসেন, উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী নিত্যান্দন বর্ম্মন, যুগের খবর সম্পাদক এস এম নুরুল আমিন, ভাওয়াইয়া এক্সপ্রেস সম্পাদক রিয়াদুল ইসলাম, প্রেস ক্লাব চিলমারী সাধারন সম্পাদক মামুন অর রশিদ, চিলমারী ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স ষ্টেশন ইনর্চাজ গোলাম মোস্তফা, বিশিষ্ট সমাজ সেবক আলহাজ্ব হাবিবুল ইসলাম অপু, পত্রিকার সম্পাদক শ্যামল কুমার বম্মর্ন, চিলমারী অনলাইন সাংবাদিক ফোরাম সভাপতি মমিনুল ইসলাম বাবু। বক্তব্য রাখেন সাংবাদিক ফজলুল হক, সাবেদ আলী মন্ডল, মঞ্জুরুল ইসলাম প্রমুখ। আলোচনা শেষে কেক কাটা হয়। সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ছিলেন পত্রিকার ব্যবস্থাপনা সম্পাদক সাওরাত হোসেন সোহেল।

Print Friendly, PDF & Email