ফুলবাড়ীতে মিটার রিডারের হাতে মুক্তিযাদ্ধার স্ত্রী-কন্য লাঞ্চিত

 
 

ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধি ।। দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে নর্দন ইলেক্ট্রি সাপ্লাই (নেসকো) এর মাষ্টার রোলের মিটার রিডার এ এম শাহেদ ইসলাম কর্তৃক এক মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী কন্যাকে মারপিট ও লাঞ্চিত করার ঘটনা ঘটেছে।
গত মঙ্গলবার (৩ ডিসেম্বর) বিকালে পৌর এলাকার উত্তর সুজাপুর গ্রামে হামলা ও মারপিটের ঘটনা ঘটে।
হামলা ও মারপিটের ঘটনায় আহত মুক্তিযোদ্ধা মৃত মতিয়ার রহমানের স্ত্রী মমেনা বেওয়া (৫৮) ও কন্যা জোরাইয়া বেগম (২৭)কে ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনাকে কেন্দ্র করে ওই দিন সন্ধায়, ফুলবাড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুস সালাম চৌধুরী ও নেসকোর ফুলবাড়ী বিদুৎ সরবরাহ কেন্দ্রের আবাসীক প্রকৌশলী উজ্জল আলী, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে আহতদের চিকিৎসার খোজ খবর নেন।
এদিকে এই ঘটনায় মাষ্টার রোলের মিটার রিডার এএম শাহেদ ইসলামকে, তার মাষ্টার রোলের চাকুরি থেকে তৎক্ষনাৎ বরখাস্ত করেছে, নেসকোর ফুলবাড়ী বিদুৎ সরবরাহ কেন্দ্রের আবাসীক প্রকৌশলী উজ্জল আলী।
বরখাস্ত হওয়া মিটার রিডার এএম শাহেদ পৌর এলাকার পশ্চিম গৌরীপাড়া গ্রামের মোফাজ্জল হোসেনের ছেলে। সে নেসকোর ফুলবাড়ী বিদুৎ সরবরাহ কেন্দ্রে মাষ্টার রোলে মিটার রিডার পদে কর্মরত ছিল।
মুক্তিযোদ্ধা মতিয়ার রহমানের স্ত্রী মমেনা বেগম বলেন, মিটার রিডার এএমশাহেদ ইসলাম মিটার পরিদর্শন না করে, ঘরে বসে ইচ্ছামত বিদুৎ বীল তৈরী করেন, এই ঘটনাটির প্রতিবাদ করায়, মিটার রিডার এএম শাহেদ ইসলাম তার মেয়ে জোরাইয়া বেগমকে অকর্থ ভাষায় গালি গালাজ করে, এই সময় তিনি গালি গালাজ করার কারন জিঙ্ঘাসা করতে এলে তাকেও ধাক্কা মারে ও তার সাথে থাকা সঙ্গি রহিমসহ তাকে ও তার মেয়েকে কিল ঘুষি মেরে চরম ভাবে আহত করে।
এই বিষয়ে জানতে চাইলে নেকোর আবাসীক প্রকৌশলী উজ্জল আলী বলেন, ওই মিটার রিডার এএম শাহেদ ইসলাম মাষ্টার রোলে কর্মরত ছিল। অফিসকে অবহিত না করে সেখানে গিয়ে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সাথে একটি অপৃতিকর ও দুঃখ জনক ঘটনা ঘটিয়েছে, এই ঘটনার সাথে নেসকোন কোন সম্পর্ক নাই। তিনি বলেন ঘটনা জানার সাথে সাথে ওই মাষ্টার রোলের মিটার রিডার এএম শাহেদকে তিনি তৎক্ষনাৎ বরখাস্ত করেছেন।

Print Friendly, PDF & Email