• শুক্রবার, ২০ মে ২০২২, ১১:০১ অপরাহ্ন |

ঘন কুয়াশায় বিমান ও ফেরি চলাচল বিঘ্নিত

সিসি ডেস্ক, ২১ ডিসেম্বর।। সারাদেশে জেঁকে বসেছে শীত। সঙ্গে প্রচণ্ড ঘন কুয়াশা। এতে ব্যাহত হচ্ছে বিমান উঠানামা এবং ফেরি চলাচল। শনিবার সকালে ঢাকার হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এবং চট্টগ্রামের শাহ আমানত বিমানবন্দরে কয়েকটি ফ্লাইট যথা সময়ে উঠানামা করতে পারেনি। এছাড়া পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে বন্ধ ছিল ফেরি চলাচল। ঘন কুয়াশার কারণে সড়কেও রয়েছে ধীরগতি।

দুই বিমানবন্দর সূত্র জানায়, নির্ধারিত কয়েকটি ফ্লাইট ঘন কুয়াশার কারণে যথাসময়ে উঠানামা করতে পারেনি। তবে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে কুয়াশা কিছুটা কেটে যাওয়ায় আস্তে আস্তে স্বাভাবিক হচ্ছে বিমান চলাচল।

অপরদিকে ঘন কুয়াশার কারণে ঢাকা-সৈয়দপুর-ঢাকা রুটে বিমানের ফ্লাইট শিডিউলে বিপর্যয় ঘটেছে। শুক্রবার সকালের ফ্লাইটগুলো প্রায় তিন-চার ঘণ্টা বিলম্বে ঢাকা থেকে উড্ডয়ন করে সৈয়দপুর বিমানবন্দরে অবতরণ করে। এতে যাত্রীদের সৈয়দপুর বিমানবন্দরে ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষায় থাকতে হয়।

বিমানবন্দর সূত্রে জানা গেছে, শিডিউলে বেসরকারি বিমান সংস্থা নভোএয়ারের একটি ফ্লাইট ঢাকা থেকে ছেড়ে সকাল সাড়ে ১০টায় সৈয়দপুর বিমানবন্দরে অবতরণের কথা ছিল। সেটি দুপুর দেড়টায় সৈয়দপুর বিমানবন্দরে অবতরণ করে। ইউএস বাংলার একটি ফ্লাইট নির্ধারিত সময় সকাল পৌনে ১১টার পরিবর্তে পৌঁছে দুপুর ১টা ২১ মিনিটে। এভাবে সৈয়দপুর বিমানবন্দরে গতকাল সকালের শিফটের সব ফ্লাইটের শিডিউলে বিপর্যয় ঘটে।

এদিকে চার ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে শনিবার সকাল ৮টার দিকে পুনরায় ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে।

এর আগে নদীতে কুয়াশার ঘনত্ব বেড়ে গেলে ফেরির মার্কিং বাতির আলো অস্পষ্ট হয়ে আসাতে দুর্ঘটনা এড়াতে ভোর ৪টার দিকে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে ফেরি চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন করপোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি) পাটুরিয়া সেক্টরের উপমহাব্যবস্থাপক (ডিজিএম) জিল্লুর রহমান জানান, ঘন কুয়াশার কারণে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে চার ঘণ্টা ফেরি চলাচল বন্ধ ছিল। নদীতে কুয়াশার ঘনত্ব কমে যাওয়ায় পুনরায় ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে।

ফেরি চলাচল বন্ধ থাকায় পাটুরিয়া ঘাট পয়েন্টে যানবাহনের দীর্ঘ সারি দেখা যায়। পারাপারের অপেক্ষায় রয়েছে তিন শতাধিক যানবাহন।

বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর শুক্রবার প্রকাশিত পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, রাজশাহী, চুয়াডাঙা ও যশোরের ওপর দিয়ে শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা অব্যাহত থাকতে পারে। দেশের উত্তর পশ্চিমাঞ্চলে হালকা/গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হতে পারে বলেও জানানো হয়েছে পূর্বাভাসে।

আবহাওয়া চিত্রের সংক্ষিপ্তসারে বলা হয়েছে, উপমহাদেশীয় উচ্চচাপ বলয়ের বর্ধিতাংশ বিহার এবং তৎসংলগ্ন এলাকা পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে, যার বর্ধিতাংশ উত্তর-পূর্ব বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে।

পরবর্তী ৪৮ ঘণ্টার আবহাওয়ার অবস্থায় তাপমাত্রা বৃদ্ধি পেলেও বর্ধিত পাঁচ দিনের আবহাওয়ায় অবস্থায় দেশের উত্তরপশ্চিমাঞ্চলে হালকা বৃষ্টি অথবা গুড়িঁ গুঁড়ি বৃষ্টি হতে পারে।

শুক্রবার দেশের কোথাও বৃষ্টিপাত হয়নি। এদিন দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল কক্সবাজারের টেকনাফে ২৬ দশমিক ৬ এবং সর্বনিম্ন ছিল চুয়াডাঙ্গায় ৮ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ