• বৃহস্পতিবার, ০৪ জুন ২০২০, ০৭:০১ অপরাহ্ন |

নওগাঁয় পুলিশ সুপারকে মেসেজ করে ত্রান পেল অসহায় গৃহবধু 

Red Chilli Saidpur

নওগাঁ প্রতিনিধি: নওগাঁয় পুলিশ সুপারকে মেসেজ করে ত্রান পেল অসহায় গৃহবধু। শনিবার সকাল ১১টায় নওগাঁর বদলগাছী থানার বারফালা গ্রামে ঐ গৃহবধুর বাড়িতে বাজার পৌছে দিয়ে পুলিশ সুপার  প্রকৌশলী আবদুল মান্নান মিয়া বিপিএম  মানবিক পুলিশের দৃষ্টান্ত স্থাপন করছেন।
জানা যায়, বদলগাছী থানার বারফালা গ্রামে দিনমজুর আব্দুস সামাদের স্ত্রী গৃহবধু টপি বেগম। তিনি নওগাঁর পুলিশ সুপার প্রকৌশলী আবদুল মান্নান মিয়া বিপিএম এর নিকট মেসেজ এর মাধ্যমে জানান করোনা ভাইরাসের কারনে আয় রোজগার না থাকায় পাঁচ সদস্যর পরিবার নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন।
এমন মেসেজ পেয়ে পুলিশ সুপার তৎক্ষনাৎ বদলগাছী থানার অফিসার ইনচার্জকে ঐ গৃহবধুর ঠিকানা দিয়ে প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী পৌছানোর ব্যবস্থার জন্য নির্দেশনা প্রদান করেন। নির্দেশনা পেয়ে বদলগাছী থানার অফিসার ইনচার্জ নিজে গৃহবধুর বাড়িতে উপস্থিত হয়ে এক বস্তা চাল, দুই কেজি আলু,এক কেজি ডাল ও  ৫০০গ্রাম তেল তার হতে তুলে দেন।
বদলগাছী থানার অফিসার ইনর্চাজ চৌধুরী জোবায়ের আহম্মেদ বলেন, পুলিশ সুপার স্যার ঐ গৃহবধুর নাম ঠিকানা দিলে আমি প্রথমে  তার বিষয়ে খোজখবর নেয়। দেখি সত্যি সত্যিই সে ছোট ছোট বাচ্চা নিয়ে খুব কষ্টে আছে। সেজন্য স্যারের নির্দেশে প্রায় দুই সপ্তাহের বাজার করে নিজে তার বাড়ি গিয়ে পৌছে দিয়ে এসেছি । আইন-শৃখ্যলার পাশাপাশি এটা আমাদের একটি মানবিক দ্বায়িত্ব।
পুলিশ সুপার প্রকৌশলী আবদুল মান্নান মিয়া বিপিএম বলেন, বর্তমান আমরা  ক্লান্তিকাল অতিক্রম করছি। আর এই সময়ে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে যারা প্রাতিষ্ঠানিক ভাবে কোন পেশার সঙ্গে সংপৃক্ত নেই।  তারা সবচেয়ে কষ্টের মধ্যে আছে। এই কষ্টের মধ্যে আমাদের প্রধানতম কাজ মানুষকে ঘরে রাখা এবং আইন-শৃখ্যলা রক্ষা করা।
তার বাহিরেও আমাদের সামাজিক যে দ্বায়বদ্ধতা আছে সেই দ্বায়বদ্ধতা থেকেই সামর্থ মত কাজ করে যাচ্ছি।  ইতিমধ্যে গরিব- দিনমজুর ১২শ পরিবারকে সাত দিনের মত খাবারের ব্যাবস্থা করছি।  আর সেটারই ধারাবাহিকতায় ঐ নারীর কষ্টে দিন যাপনের মেসেজ পেয়ে  উদ্যোগ নিয়ে তার বাড়িতে কয়েক দিনের বাজার করে পাঠানোর হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

আর্কাইভ