• মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ১১:৩৩ অপরাহ্ন |
শিরোনাম :

বড় অঙ্কের মুচলেকা দিয়ে কারামুক্ত রোনালদিনহো

খেলাধুলা ডেস্ক ।। ১.৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার মুচলেকা দিয়ে ৩২ দিন পর কারাবন্দি জীবন থেকে মুক্তি পেলেন ব্রাজিলিয়ান কিংবদন্তি ফুটবলার রোনালদিনহো। যা বাংলাদেশি মুদ্রায় ১৩ কোটি ৬০ লাখ ৩৩ হাজার টাকা। তবে এখনই পুরোপুরি মুক্তি পাচ্ছেন না তিনি। আপাতত ‘হাউজ অ্যারেস্ট’ অবস্থায় একটি হোটেলে থাকতে হবে তাকে।

প্যারাগুয়ের রাজধানী অ্যাসুনসিওনের একটি হোটেলে বন্দি থাকবেন তারা। রোনালদিনহোর আইনজীবী অ্যাডল্ফ মারিন রোনালদিনহোকে জেলে পাঠানোর বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে আদালতে আপিল করার পর বিচারক গুস্তাভো আমেরিয়া এ রায় দেন। মামলা পুরোপুরি শেষ হওয়ার আগেই রোনালদিনহো ও তার ভাই পালিয়ে যেতে পারেন এমন শঙ্কা থাকায় স্থানীয় প্রসাশনের কাছে ১.৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার ‘বন্ধক’ হিসেবে জমা দিয়েছেন রোনালদিনহোর আইনজীবী। ভূয়া পাসপোর্ট নিয়ে প্যারাগুয়েতে প্রবেশের দায়ে গত মার্চ মাসের শুরুতে গ্রেফতার হর রোনালদিনহো ও তার ভাই। এরপর ছয় মাসের সাজাও হয় তাদের।

ব্রাজিলিয়ানদের প্যারাগুয়েতে প্রবেশের জন্য পাসপোর্টের প্রয়োজন হয় না। কেন রোনালদিনহো ও তার ভাই পাসপোর্ট নিয়ে দেশটিতে গেলেন এর উত্তর মিলেছে অবশেষে। যে প্রতিষ্ঠানটির শুভেচ্ছা দূত হিসেবে প্যারাগুয়েতে গিয়েছিলেন তারাই রোনালদিনহো ও তার ভাইকে উপহার হিসেবে সে দেশের পাসপোর্ট দিয়েছিলেন। অনেক কাগজ পত্রের মধ্যে প্যারাগুয়ের পাসপোর্টও যে তাদের সঙ্গে ছিল সেটা জানতেন না রোনালদিনহো। প্যারাগুয়ের আদালতে এটা প্রমাণ করতে পেরেছেন রোনালদিনহোর আইনজীবী।

প্যারাগুয়ের একটি দাতব্য প্রতিষ্ঠানের শুভেচ্ছাদূত হয়েছিলেন বিশ্বকাপজয়ী এ তারকা। সেই খাতিরে অনেকটা লুকিয়ে জাল পাসপোর্ট বানিয়ে প্যারাগুয়ে যাওয়ার অভিযোগ ওঠে তার বিরুদ্ধে। প্যারাগুয়ের যে হোটেলে রোনালদিনহো উঠেছিলেন, সেখানে অভিযান চালান দেশটির তদন্ত কর্মকর্তারা। তাতেই পাওয়া যায় জাল পাসপোর্ট।

রোনালদিনহোকে নিয়ে বিতর্ক নতুন নয়। ফুটবল ছাড়ার পর এর আগে নিজ দেশ ব্রাজিলের লেক গুয়াইবায় অনুমতি ছাড়া চিনির কল বসানোয় শাস্তির কবলে পড়েছিলেন। এমন অপরাধে তাকে ২৩ লাখ ডলার জরিমানা করা হয়; কিন্তু তার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ঘেঁটে মিলেছে মাত্র ৬ ডলার ৫৯ সেন্ট। আর জরিমানা পরিশোধ করতে না পারায় ব্রাজিলিয়ান কর্তৃপক্ষ তার পাসপোর্ট জব্দ করেছিল।

অবশ্য কারাবন্দী সময়টাতেও নিজের ফুটবল স্বত্বাকে দূরে রাখতে পারেননি রোনালদিনহো। জেলের অন্যান্য কয়েদীদের সঙ্গে কখনও ফুটসাল, কখনও ফুট ভলিবল খেলেই সময় কাটিয়ে দিয়েছেন তিনি। এমনকি নিজের ৪০তম জন্মদিনটাও কয়েদীদের সঙ্গে কেক কেটেই উদযাপন করেছেন রোনালদিনহো।


আপনার মতামত লিখুন :

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ