• শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০১:১২ পূর্বাহ্ন |

সৈয়দপুরে সুন্দরীদের দিয়ে অশ্লীল ভিডিও ধারনের মাধ‌্যমে প্রতারণা

সিসি নিউজ, ০৭ জুন ।। সৈয়দপুরে বিভিন্ন কৌশলে ধর্ণাঢ‌্য, চাকুরীজীবি বা ব‌্যবসায়ীদের ফাঁদে ফেলে প্রতারণার আশ্রয় নিচ্ছে একটি সংঘবদ্ধ চক্র। ওই চক্রের সদস‌্যরা প্রেমের ফাঁদ কিংবা প্রশাসনের লোক সেজে বিভিন্ন পেশার ব‌্যাক্তিকে বাসায় ডেকে এনে জোর পূর্বক সুন্দরী নারীদের সাথে অশ্লীল ভিডিও ধারন করছে। পরে তা পরিবারের কাছে ফাঁস করে দেয়া বা ইন্টারনেটে প্রকাশ করার ভয় দেখিয়ে হাতিয়ে নিচ্ছে অর্থ। এ চক্রের তিন সদস‌্যকে গতকাল শনিবার সৈয়দপুর থানা পুলিশ গ্রেফতার করেছে।

আটক ওই তিন প্রতারক চক্রের সদস‌্যরা হলেন নীলফামারী সদরের বাবরীঝাড় চৌপথি বাজারের মিঠু হোসেনের পুত্র লিমন হোসেন (২৫), লিমন হোসেনের স্ত্রী আকতারা বেগম (২১) এবং সৈয়দপুর শহরের আতিয়ার কলোনীর মৃত মোছলেম উদ্দিনের পুত্র আবু বিন আজাদ ওরফে শাওন (৩৫)।

থানা সূত্রে জানা যায়, রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলার পাইকান হাজীপাড়ার মৃত জসিম উদ্দিনের পুত্র আব্দুর রহিম (৫০) ব‌্যাক্তিগত কাজে গতকাল শনিবার সকাল আনুমানিক ১০টার সময় সৈয়দপুর বাস টার্মিনালে আসে। এ সময় প্রতারক চক্রের তিন সদস‌্য নিজেকে পুলিশের সদস‌্য পরিচয় দিয়ে তাকে আটক করে। ইয়াবা রয়েছে এমন অভিযোগে তাকে থানায় নেয়ার কৌশলে শহরের খেজুরবাগ মুন্সিপাড়ায় আবু বিন আজাদ ওরফে শাওনের বাসায় নিয়ে যায় ওই ব‌্যাক্তিকে।

সেখানে আব্দুর রহিমকে ভয়ভীতি দেখিয়ে শরীরের পোষাক খুলে তাকে উলঙ্গ করা হয়। তারপর আকতারা বেগম তাকে জড়িয়ে ধরে অশ্লীল ভিডিও ধারন করে প্রতারক চক্রটি। সেই ভিডিও প্রকাশ করার হুমকি দেখিয়ে ওই ব‌্যাক্তির কাছে ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করা হয়। নিজের জীবন বাঁচানো ও মান-সম্মানের ভয়ে আব্দুর রহিম ১ লাখ টাকা দিতে সম্মতি হয় এবং প্রতারক চক্রের ০১৭১৭৬৩৫১৫৩ নম্বরে তার পরিবার থেকে ২০ হাজার টাকা প্রেরণ করে। বাকী টাকা দেয়ার শর্তে সন্ধ‌্যা সাড়ে ৬টার দিকে তাকে ছেড়ে দিলে আব্দুর রহিম সৈয়দপুর থানায় এসে ঘটনাটি অবগত করলে পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে তিন প্রতারককে গ্রেফতার করে।

এ ঘটনায় আব্দুর রহিম নিজে বাদী হয়ে ৭জনকে আসামী করে থানায় একটি মামলা দায়ের করে। মামলার অন‌্যান‌্য আসামীরা হলেন, রংপুর বাস টার্মিনালের শ‌্যামল রায় (৪০) ও তার স্ত্রী বীনা রানী (৩৫), ঘাঘট পাড়ার নাজির (২২) ও সেনপাড়ার আরমান (২৮)।

সৈয়দপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবুল হাসনাত খান মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে সিসি নিউজকে জানান, বাকী আসামীদের গ্রেফতারে জোর চেষ্টা চলছে।

 

 


আপনার মতামত লিখুন :

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ