• শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯:৪১ অপরাহ্ন |

সৈয়দপুরে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ভিজিএফ’র চাল আত্মসাতের অভিযোগ

বিশেষ প্রতিনিধি, ২৯ জুলাই ।। নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলার কাশিরাম বেলপুকুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এনামুল হক চৌধুরীর বিরুদ্ধে ঈদ- উল আযহা উপলক্ষ্যে অতি দরিদ্রদের জন্য সরকারি রিলিফের (ভিজিএফ) চাল আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। তার বিরুদ্ধে করোনাকালীন সময়ে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া খাদ্য সহায়তা আত্মসাতের অভিযোগও মিলেছে।
ইউনিয়ন পরিষদ সূত্রে জানা যায়, ঈদ -উল আযহা উপলক্ষে কাশিরাম বেলপুকুর ইউনিয়নে স্লিপের মাধ্যমে ৯ হাজার ৯৯৮ জনের বিপরীতে ভিজিএফ’র চাল বরাদ্দ দেয়া হয়। যা গত ২৭ জুলাই উপজেলা খাদ্য গুদাম হতে চাল উত্তোলনের মাধ্যমে বিতরণ শুরু করে। দু’দিন ধরে এলাকার লোকজনকে চাল দেয়া হলেও তৃতীয় দিনে বুধবার (২৯ জুলাই) প্রায় ১ হাজার স্লিপ ধারী চাল নিতে এলে তাদেরকে বলা হয় চাল শেষ হয়ে গেছে। এ মূহর্তে দেয়া সম্ভব নয়। এ কথা শুনে স্লিপ ধারীরা প্রতিবাদ করলে চেয়ারম্যানের লোকজন তাদেরকে জোরপূর্বক পরিষদ থেকে বের করে দেয়। ভিজিএফ’র চাল না পেয়ে তারা ইউনিয়ন পরিষদ ঘেরাওসহ ভিক্ষোভ কর্মসূচী পালন করেছে।
এ ব্যাপারে স্লিপধারী মোছা: আমিনা, মো.আলী, আব্দুর রশিদ, নূরীসহ অনেকে বলেন, সকাল থেকে চালের জন্য আমরা অপেক্ষা করছিলাম। কিন্তু দু’ঘন্টা পর চেয়ারম্যান এসে আমাদের বলেন, চাল দেয়া সম্ভব নয়। আপনারা ১০০ টাকার বিনিময়ে স্লিপ জমা দিয়ে যান। এতে আমরা রাজি না হওয়ায় অনেকের কাছ থেকে স্লিপ কেড়ে নিয়ে ছিঁড়ে ফেলে।
তবে ইউপি চেয়ারম্যান এনামুল হক চৌধুরী চাল আত্মসাতের অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, শেষ হয়ে যাওয়ায় প্রায় ৪০০ লোককে উত্তোলন সাপেক্ষে আগামীকাল চাল দেয়া হবে।
ভিজিএফ চাল বিতরণ কমিটির উপদেষ্টা ও উপজেলা চেয়ারম্যান মোকছেদুল মোমিন বলেন, সভার সিদ্ধান্ত অননুযায়ী খাদ্যগুদাম থেকে চাল উত্তোলনের সুযোগ নেই। তবে একাধিক দিনে চাল বিতরন করা যাবে । এক্ষেত্রে ২৭ জুলাইয়ের পর চাল উত্তোলনের আর কোন সুযোগ নেই। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, অতিতেও ওই চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে চাল নিয়ে নয় ছয়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এর আগে করোনাকালিন সময়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেয়া ৮ নং ওয়ার্ডের চকপাড়ার মফার উদ্দিনের ছেলে মোজাফফ আলী, পশ্চিম বেল পুকুরের মো. আলীর ছেলে আমিনুল হক, বাগিচা পাড়ার হারুনর রশিদের ছেলে রেজাউলসহ ২৩ জনের খাদ্যসহায়তা আত্বসাত করে । সে সময় তাদেরকে ঈদ- উল আযহায় চাল দেয়ার আশ্বাস দিয়ে বিষয়টি নিষ্পত্তি করা হয়।
এ ব্যাপারে সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো.নাসিম আহমেদ বলেন, ঘটনাটি শোনার পর আমি ইউনিয়ন পরিষদের প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আবু হাসনাত ও সমবায় কর্মকর্তা মো. মশিউর রহমানকে বিস্তারিত জানার উদ্দেশ্যে পাঠানো হয়েছে। ঘটনা তদন্ত করে তাদের দ্রুত প্রতিবেদন দিতে বলেছি । প্রতিবেদনে আত্মসাতের অভিযোগ পাওয়া গেলে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ