• রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০:৫৭ অপরাহ্ন |

দিনাজপুরে ৬ বছর আগে হামলার শিকার হন ইউএনও ফরহাদ

সিসি ডেস্ক ।। সরকারি বাসভবনে ঢুকে ২ সেপ্টেম্বর রাতে দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ওয়াহিদা খানমকে কুপিয়ে ও হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে জখম করে দুর্বৃত্তরা। শুধু তাই নয়, তার বাবা মুক্তিযোদ্ধা ওমর আলী শেখকেও কোপানো হয়।

এ ঘটনায় গ্রেফতার তিনজন রিমান্ডে আছে। তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে ইতোমধ্যে ২০ জনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। এখনও উদ্ঘাটন হয়নি ঘটনার রহস্য।

দিনাজপুরে এ ধরনের ঘটনা নতুন নয়। ৬ বছর আগে এ উপজেলার পাশের নবাবগঞ্জ উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) ওপর হামলা চালায় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা।

জানা যায়, ৩৯টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নাইটগার্ড নিয়োগ নিয়ে নবাবগঞ্জের ইউএনও ফরহাদ হোসেনের সঙ্গে স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাদের বিরোধ সৃষ্টি হয়।

এরই জেরে ২০১৪ সালের ১ অক্টোবর আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগ বিক্ষোভ মিছিল বের করে। মিছিলটি উপজেলা পরিষদ চত্বরে গিয়ে শেষ হয়। এ সময় ইউএনওর কার্যালয় তালাবদ্ধ থাকলে বিক্ষোভকারীরা তালা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করে। তখন ইউএনও ফরহাদ হোসেন ওয়াশরুমে ছিলেন।

হামলাকারীরা ইউএনওকে ওয়াশরুম থেকে বের করে মারধর করে। ওই সময়ও স্থানীয় সংসদ সদস্য ছিলেন বর্তমান সংসদ সদস্য শিবলী সাদিক। কাকতালীয় হলেও বর্তমান ঘোড়াঘাট থানার বর্তমান ওসি আমিরুল ইসলাম ওই সময় নবাবগঞ্জ থানার ওসি ছিলেন।

ঘটনার ৩ দিন পর ইউএনও ফরহাদ হোসেন ২৯ জনকে আসামি করে মামলা করেন। আসামিদের অধিকাংশই আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মী। ২০১৫ সালের শেষের দিকে মামলার চার্জশিট দাখিল করা হয়। এ মামলার আসামিরা বর্তমানে জামিনে রয়েছে। সূত্র: যুগান্তর


আপনার মতামত লিখুন :

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ