• মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ০৫:১০ অপরাহ্ন |

হাবিপ্রবি’তে আট দফা দাবিতে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

সিসি ডেস্ক ।। সেমিস্টার ফাইনাল পরীক্ষার ফলাফল চেয়ে ও সেশনজটের মতো এক ভয়ঙ্কর অভিশাপ থেকে মুক্তি পেতে আট দফা দাবিতে মানববন্ধন করেছে দিনাজপুর হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) কৃষি অনুষদের ১৯ ব্যাচের শিক্ষার্থীরা।

মঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) দুপুর ১২ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে এই মানববন্ধনটির আয়োজন করে সাধারণ ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা। মানববন্ধন শেষে শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মু. আবুল কাসেম বরাবর ৮ দফা দাবির একটি স্মারক লিপি প্রেরণ করে।

করোনা মহামারীর এই পরিস্থিতিতে সেশনজট কমাতে ৮ দফা দাবির স্মরক লিপিতে শিক্ষার্থী বলেন, ” আমরা হাবিপ্রবি, কৃষি অনুষদের ১৯ তম ব্যাচের শিক্ষার্থী, অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ে আমরা ফেব্রুয়ারি ২০১৯ সালে ভর্তি হই এবং আমাদের একাডেমিক কার্যক্রম শুরু হয় ৩রা মার্চ।

লেভেল-১ সেমিস্টার-১ এর চূড়ান্ত পরীক্ষা শুরু হয় ২৯ আগষ্ট এবং শেষ হয় ১৭ অক্টোবর। দুঃখজনক হলেও সত্যি ১ বছর অতিক্রম হওয়ার পরেও আমরা আমাদের লেভেল-১ সেমিস্টার-১ এর ফলাফল এখনো পাইনি।

বর্তমানে আমরা লেভেল-১ সেমিস্টার-২ তে অধ্যয়নরত। কোভিড-১৯ মহামারির আগেই আমাদের একাডেমিক কোর্স প্রায় সম্পন্ন হয়। এমনকি আমরা আমাদের এনরোলমেন্ট ফি জমা দিয়েছি। বারবার ডীন অফিস, কন্ট্রোলারের অফিস, সম্মানিত শিক্ষকদের দ্বারপ্রান্তে গিয়েছি কিন্তু তারা আশ্বাস দিলেও কার্যকর পদক্ষেপ নেয়নি।

এমতাবস্থায় আমাদের সেসনজট কমাতে এবং একাডেমিক কার্যক্রম সচল রাখার জন্য আমাদের ৮ দফা দাবি দ্রুত বাস্তবায়নের জন্য জোর দাবি জানাচ্ছি। আমাদের আট দফা দাবি সমূহ :

১। অনতিবিলম্বে লেভেল-১ সেমিস্টার-১ এর ফলাফল দিতে হবে।

২। সিলেবাস শর্ট করে লেভেল-১ সেমিস্টার-২ এর পরীক্ষা নেওয়ার ব্যবস্থা করতে হবে (সম্ভব হলে অনলাইনে)।

৩। যদি পরীক্ষা নেয়া সম্ভব না হয় তাহলে খুব তাড়াতাড়ি লেভেল-২ সেমিস্টার-১ এর ক্লাস শুরু করতে হবে।

৪। সেশনজট কমানোর জন্য বাকি সেমিস্টার গুলো ৫ মাসে শেষ করতে হবে।

৫। প্র্যাক্টিক্যাল এর এক্সপেরিমেন্ট কমিয়ে প্রেজেন্টেশন অথবা এসাইনমেন্ট সিস্টেম শুরু করতে হবে।

৬। এই মহামারীর প্রেক্ষিতে প্রয়োজনে ইয়ারলি সিস্টেম চালু করতে হবে (বছরে একটি পরীক্ষা)।

৭। সেমিস্টার শুরুর আগে একাডেমিক ক্যালেন্ডার দিতে হবে যেখানে মিড এবং ফাইনাল পরীক্ষার সম্ভাব্য তারিখ উল্লেখ থাকবে।

৮। ফাইনাল পরীক্ষার পর তিন মাসের মধ্যে ফলাফল দিতে হবে, সেটা পরের সেমিস্টারের মিড পরীক্ষার আগেই ।”

উক্ত মানববন্ধনে কৃষি অনুষদের ১৯ ব্যাচের শিক্ষার্থী আবুল বাশার তাদের আট দফা দাবি তুলে ধরার পাশাপাশি বলেন, “শিক্ষক সংকট দ্রুত সময়ের মাঝেই সামাধান করতে হবে। শিক্ষক ও শিক্ষার্থীর অনুপাত (২০:১) ঠিক রাখতে হবে। যাতে করোনা পরবর্তী সময়ে দ্রুত ক্লাস কার্যক্রম সমাপ্ত করে পরবর্তী সেমিস্টারে ওঠা যায়।

পাশাপাশি ক্লাসরুম সংকট দ্রুত সমাধান করতে হবে। কারণ আমরা একই ক্লাসরুমে ১২৫ জন শিক্ষার্থী ক্লাস করি যা সত্যিই দুঃখজনক। এছাড়া ক্লাস রুমে নেই কোনো ধরনের সাউন্ডসিস্টেম,ফলে ক্লাস করতে অনেক শিক্ষার্থী অসুবিধার সম্মুখীন হয়।”


আপনার মতামত লিখুন :

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ