Logo

সৈয়দপুরে প্রকাশ্যে দিবালোকে আওয়ামী লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা

সিসি নিউজ, ৩০ অক্টোবর ।। সৈয়দপুর পৌর আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মজিবর রহমানের উপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটেছে। সৈয়দপুর কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালের গোল চত্ত্বরে প্রকাশ্যে দিবালোকে কুপিয়ে হত্যার উদ্দেশে  এ হামলার  অভিযোগ করা হয়েছে। মজিবর রহমান নীলফামারী বাস, মিনিবাস মালিক সমিতির প্রধান অফিস সহকারী।

আওয়ামী লীগ নেতা মজিবর রহমানের স্বজন ও সহকর্মীরা জানান, গতকাল বৃহস্পতিবার ( ২৯ অক্টোবর) বেলা ১ টার দিকে অফিসের কাজে বাস টার্মিনালে যান। সেখান থেকে ফেরার সময় গোল চত্ত্বরে পৌছালে সন্ত্রাসীরা তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে দেশীয় ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপাতে থাকে। এতে তার ডান হাতের কব্জি, পিঠ ও পায়ে গুরুত্বরভাবে কেটে যায়। এ সময় পথচারীরা তার আত্ম চিৎকারে এগিয়ে এলে সন্ত্রাসীরা পারিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা গুরুতর আহত মজিবর রহমানকে সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করায়।

হাসপাতালে চিকিৎসাধিন অবস্থায় মজিবর রহমান জানান, কাজ শেষে বাস টার্মিনাল থেকে নিজস্ব মোটরসাইকেল যোগে ফেরার পথে গতি রোধ করে শহরের কুন্দল এলাকার মমতাজের ছেলে ফরহাদ হোসেন ফিরোজ অতর্কিত হামলা চালায়। এসময় তার সাথে আরও ৭/৮ জন মুখোশধারী যুবক ছিলো। কোন কিছু বুঝে ওঠার আগেই ফিরোজ তার হাতে থাকা ধারালো দেশীয় অস্ত্র দিয়ে এলোপাথাড়ি আঘাত করে। তিনি সিসি নিউজকে জানান, আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যেই ফিরোজ ও তার দলবল নিয়ে আমার উপর হামলা চালিয়েছে।

সৈয়দপুর পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোজাম্মেল হক বলেন, দপ্তর সম্পাদক মজিবরের উপর সন্ত্রাসীরা হত্যার উদ্দেশ্যেই হামলা চালিয়েছে। তিনি সন্ত্রাসীদেরকে দ্রুত গ্রেফতারের দাবি জানান পুলিশ প্রশাসনের কাছে।

সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোখছেদুল মোমিন বলেন, প্রকাশ্যে দিনের বেলায় এ ধরণের সন্ত্রাসী হামলায় মজিবর রহমানকে মেরে ফেলার অপচেষ্টার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচিছ এবং দ্রুত আসামীদের গ্রেফতার করে বিচার নিশ্চিত করার দাবি জানান তিনি।

সৈয়দপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আবুল হাসনাত খান জানান, এ ঘটনায় মজিবর রহমান বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা করেছে । মামলার আসামীদের গ্রেফতারে চেষ্টা অব্যহত রয়েছে।