• বুধবার, ২১ এপ্রিল ২০২১, ১১:৪০ পূর্বাহ্ন |

চলন্ত ট্রেনে প্রসব: ট্রেনেই বাড়ি ফিরল মিতালী

।। মোঃ তাফহিমুল ইসলাম ।। চলন্ত ট্রেনে সন্তান জন্ম দেওয়া মুক্তি পারভীন (২৫) বাড়ি ফিরেছেন। বুধবার দুপুরে দিনাজপুর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসাপাতালের গাইনী ওয়ার্ড থেকে তাকে ছাড়পত্র দেওয়া হয়। মুক্তি পারভীন ও তাঁর সন্তানকে বিনা ভাড়ায় বাড়ি পৌঁছে দিয়েছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ তাদের গ্যাং কারে করে।

বিদায়ের সময় বাংলাদেশ রেলওয়ে লালমনিরহাট বিভাগীয় ব্যবস্থাপক শাহী সুফি নুর মোহাম্মদ দিনাজপুর রেলওয়ে ষ্টেশনে দুপুর ২ টার সময় গ্যাংকারে তুলে দেন।

অপরদিকে দিনাজপুর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসাপাতালের পক্ষ থেকে মুক্তি পারভীন ও নবজাতক মিতালীকে বিনা মূল্যে প্রয়োজনীয় ওষুধ দিয়ে দিয়েছেন। যাতে করে বাড়ীতে গিয়ে কোন ওষুধ কিনতে না হয়।

বাংলাদেশ রেলওয়ে লালমনিরহাট বিভাগীয় ব্যবস্থাপক শাহী সুফি নুর মোহাম্মদ বলেন, মুক্তি পারভীন এবং তার নবজাতক পুরোপুরি সুস্থ। আমরা গ্যাংকার নিয়ে চেকিং এ বেরিয়েছিলাম যে, আমাদের রেলওয়ের লোকজনরা করোনাকালীন সময়ে অলস সময় পার করছেন না কি কাজ করছেনন তা দেখার জন্য। পাশা পাশি রেল লাইন ও অন্যান্য কোন মেরামতের কাজ রয়েছে কি না তা যাচাই করার জন্য। এরই মধ্যে আমরা যখন জানতে পারলাম যে গত ৪ এপ্রিল ট্রেনে জন্ম নেয়া নবজাতক ও তার মাকে হাসাপাতাল থেকে ছুটি দেয়া হবে। তখন করোনা কালীন সময়ে লকডাইনের মধ্যে মা ও সন্তানের যাতায়াত অন্য ওেয কোন মাধ্যমের চেয়ে ট্রেন নিরাপত। যেহেতু আমাদের সুযোগ রয়েছে তাই আমরা এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে মা ও নবজাতককে আমাদের গ্যাংকারে করে পৌছে দেয়ার ব্যবস্থা করেছি।

তিনি বলেন, সম্ভবত এটাই প্রথম কোন ট্রেনের নামে সন্তানের মার রাখা হল। আমরা প্রস্তাব দিয়েছিলাম তার পিতা-মাতা এতে রাজি হয়েছে। বাড়ী যাওয়ার সময় মুক্তি পারভীনের সঙ্গে ছিলেন স্বামী মনসুর আলী ও বড় মেয়ে মুসফি (২)। মুক্তি পারভীন- মনসুর আলী দম্পতির বাড়ী ঠাকুরগাঁও জেলার পীরগঞ্জ উপজেলার ভুমরাদহ হাজী পাড়া গ্রামে।

এব্যাপারে জানতে চাইলে স্টেশন সুপারিনটেনডেন্ট এবিএম জিয়াউর রহমান বিষয়টি জানান, প্রসুতি মাতা মুক্তি পারভীন ও নবজাতককে নিরাপদে বাড়ীতে পৌছে দেয়ার ব্যবস্থা করতে পেরেছি। এ জন্য আমরা বাংলাদেশ রেলওয়ে লালমনিরহাট বিভাগীয় ব্যবস্থাপক শাহী সুফি নুর মোহাম্মদ স্যারকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

প্রসুতি মাতা মুক্তি পারভীন বলেন, রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ আমাদেরকে যে সেবা দিয়েছে। তা ট্রেনে সন্তান ভূমিষ্ট হওয়া থেকে শুরু করে আমাদেরকে বাড়ী পৌছে দেয়া পর্যন্ত সব ধরণের সহযোগীতা করেছে। আমরা সেজন্য সারা জীবন কৃতজ্ঞ থাকব।

এ সময় দিনাজপুর রেলওয়ে ষ্টেশনে এক আনন্দঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয়। রেলওয়ের ষ্টাফরা সবাই হাত নেড়ে নবজাতক ও তার পরিবারকে বিদায় জানায়।

উল্লেখ্য গত ৪ এপ্রিল দ্রুতযান ট্রেনে নবজাতক কন্যা সন্তান জন্ম দেন মুক্তি পারভীন । এ সময় তাকে ট্রেনের মধ্যে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ সব ধরণের সহায়তা দিয়ে সন্তান ভূমিষ্টে সহায়তা করেন। সেদিন ওেট্রনে নতুন অতিথির আগমনের জন্য আন্তঃনগর দ্রুতযান ট্রেন নির্ধারিত সময়ের ১৩ মিনিট পর দিনাজপুর ষ্টেশন ছেড়ে গিয়েছিল। আজ বুধবার তারা নবজাতক ও তার পরিবারকে নিরাপদে গ্যাংকার ট্রেনে করে বাড়ী পৌছে দিল।


আপনার মতামত লিখুন :

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ

error: Content is protected !!