• রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ০৬:৩১ অপরাহ্ন |

কুড়িগ্রামে আকস্মিক বন্যায় ২৬টি গ্রাম প্লাবিত

সিসি নিউজ ডেস্ক ।। মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে সৃষ্ট লঘুচাপের কারণে গত দুদিনের অব্যাহত মাঝারি বৃষ্টিপাত। অন্যদিকে ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে বন্যা পরিস্থিতির অবনতির কারণে ডালিয়ায় তিস্তা নদীর ব্যারেজের সব গেট খুলে দেয়ায় তীব্র গতিতে বেড়েছে তিস্তা নদীর পানি ও ভাঙন। এতে কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলার বিদ্যানন্দ ও ঘড়িয়ালডাঙ্গা ইউনিয়ন ও উলিপুর উপজেলার থেতরাই, দলদলিয়া, গুনাইগাছসহ বজরা ইউনিয়নের ২৬টি গ্রাম পানি দ্বারা প্লাবিত হয়ে পড়ায় এসব গ্রামের অন্তত ৩০ হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে।

ঘরে ও বাইরে বন্যার পানি থাকায় অনেকেই রাতে আতঙ্ক নিয়ে চৌকিতে স্ত্রী সন্তানদের নিয়ে রাত জেগেছেন। এসব এলাকার অনেক পরিবারের চুলা পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় রান্না করতে না পারায় সকাল থেকে অনাহারে-অর্ধাহারে রয়েছেন তারা। শিশু ও বৃদ্ধরা ঝুঁকি নিয়েই পানিতে চলাচল করছেন। এসব অঞ্চলের অনেক পরিবারের গবাদি পশুগুলো নৌকায় করে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসহ নিরাপদ স্থানে রেখেছেন থেতরাই সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে রেখেছেন তারা।

উলিপুর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আবু সাঈদ জানান, তিস্তা নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে উলিপুর উপজেলার থেতরাই, দলদলিয়া, গুনাইগাছসহ বজরা ইউনিয়নের ৩০টি গ্রামের অন্তত ২০ হাজার পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। পানিবন্দি এসব পরিবারের জন্য শুকনো খাবারের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। এগুলো আজকেই (বৃহস্পতিবার) পানিবন্দি পরিবারগুলোর মাঝে বিতরণ করা হবে। আমরা এবিষয়ে উপজেলা প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলছি।

রাজারহাট উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা সজিবুল করিম জানান, তিস্তা নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে উপজেলার বিদ্যানন্দ ও ঘড়িয়ালডাঙ্গা ইউনিয়নের সাতটি গ্রাম প্লাবিত হয়ে পড়ায় এসব গ্রামের অন্তত ছয় হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে।

কুড়িগ্রাম পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, বৃষ্টি ও ভারতের উজান থেকে নেমে আসা ঢলে তিস্তা নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে কাউনিয়া পয়েন্টে বিপৎসীমার ২০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ায় বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। তবে বৃহস্পতিবার পানি নেমে যাওয়ায় পরিস্থিতির উন্নতি হচ্ছে। নদী ভাঙন রোধে এলাকাগুলোতে জরুরি ভিত্তিতে বালুর বস্তা ফেলানো হচ্ছে বলেও জানান তিনি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ