• বৃহস্পতিবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:৫৩ অপরাহ্ন |

বর্গাচাষীর জবর দখল করা সম্পত্তি ফিরে পেতে শহীদ কন্যার সংবাদ সম্মেলন

জয়পুরহাট প্রতিনিধি ।। জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার রুনিহালী গ্রামের গৃহবধূ ও শহীদ পরিবারের কন্যা সন্তানের সম্পত্তি এক বর্গা চাষী জবর দখলে নিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ অবস্থায় বছরের পর বছর বিভিন্ন অফিস, আদালত, সলিশ, দরবারসহ সমাজপতিদের দুয়ারে দুয়ারে ধর্না দিয়েও কোন উপকার না পাওয়ায় সংবাদ সম্মেলন করেন তিনি।

আজ শুক্রবার বিকালে উপজেলার রুনিহালী গ্রামে নিজ বাস ভবনে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত অভিযোগ করেন একই গ্রামের নির্মল চন্দ্র মন্ডলের স্ত্রী ও দিনাজপুরে ঘোড়াঘাট উপজেলার বৈদর গ্রামের শহীদ নৃত্য গোপালের (মুক্তিযুদ্ধের সময় পাক হানাদার বাহিনীর হাতে নিহত) কন্যা মঞ্জু রানী। এ সময় তার সাথে উপস্থিত ছিলেন মঞ্জু রানীর স্বামী নির্মল চন্দ্র মন্ডল, নির্মলের ভাই মুক্তিযোদ্ধা অমল চন্দ্র মন্ডল, পাশ্ববর্তী শালাইপুর বাজার বনিক সমিতির সাধারন সম্পাদক মতিয়ার রহমান, একই এলাকার পল্লী চিকিৎসক আব্দুল খালেকসহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ।

মঞ্জু রানী লিখিত বক্তব্যে অভিযোগ করেন, তার স্বামীর বাড়ি পাঁচবিবি উপজেলার পাশর্^বর্তী দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলার বৈদর গ্রামটি তার বাবার বাড়ি। মুক্তিযুদ্ধের সময় পাক বাহিনী তার বাবাকে হত্যা করে। সে সময় থেকে মা উষা রানী স্বামী নৃত্য গোপালের সম্পত্তি লাভ করেন যা পরবর্তীকালে এক মাত্র কন্যা হিসেবে তাকে (মঞ্জু রানী) দান করেন।

এই সব সম্পত্তির মধ্যে ওই বৈদর গ্রামের (মৌজা) সাবেক ৩১৬ বা হালে ৪৭৩ নম্বর দাগে ১০ শতক, সাবেক ৩১৫ বা হালে ৪৮৯ নম্বর দাগে ২২ শতক, সাবেক ৩১৪ বা হালে ৪৯০ দাগে ২৬ শতক সর্বমোট ৫৮ শতক আবাদি জমি ১৯৯০ সাল থেকে বর্গাচাষ করে আসছিলেন ওই গ্রামের মৃত ইমারত আলীর ছেলে ধলু মিয়।

১৯৮৬ সালে বিয়ের পর মা উষারানীসহ মঞ্জু রানী স্বামীর বাড়িতে অবস্থান করায় ধলু মিয়া ফসলের অর্ধেক মঞ্জু রানীর স্বামীর বাড়িতে পৌঁছে দিতেন। এরই এক পর্যায়ে ২০০৪ সালের পর থেকে ধলু মিয়া মঞ্জু রানীকে ফসল দেওয়া বন্ধ করে নানা তালবাহানা করতে থাকেন।

মঞ্জু রানী আরো বলেন , ‘এরপর দীর্ঘ দিন বিভিন্ন দেন দরবার করেও কোন সুরাহা না হলে আমার পক্ষে স্বামী নির্মল বাদী হয়ে গত বছর ৩১ ডিসেম্বর ধলু মিয়াকে উকিল নোটিশ পাঠান। পরে জানতে পারি ধলু মিয়া তার নামে জাল দলিল সৃষ্টি করে আমার ওই ৫৮ শতক সম্পত্তি জোর করে দখল করেছেন।’

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ব্যাক্তিগন জানান, এই সম্পত্তির প্রকৃত মালিক মঞ্জু রানী ও বর্গাচাষী যে ধলু মিয়া সে ব্যাপারে তারা অবগত আছেন। এক সংখ্যালঘু পরিবারের শহীদ কন্যার মেয়ে হয়ে দ্বারে দ্বারে ঘুরেও কোন ন্যায় বিচার পাচ্ছেন না বলে তারা বিস্মিত হয়েছেন। তারা ধলু মিয়াকে ভূমি দস্যু বলে উল্লেখ করে তার শাস্তি ও মঞ্জু রানীকে তার সম্পত্তি ফেরত দেওয়ার জন্য সরকারের কাছে আবেদন জানান।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত ধলু মিয়ার সাথে মুঠো ফোনে (০১৭৮৮-১৬৩১৯৭) বার বার যোগাযোগ করা হলেও তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

মঞ্জু রানীর পক্ষে তার স্বামী নির্মলের আইনজীবি (জয়পুরহাট আদালত) এম এ হাসান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে মুঠো ফোনে (০১৭৮৮-৭৭৯৪৪৮) জানান, ধলু মিয়ার কাছ থেকে ক্ষতিপূরনসহ মঞ্জু রানী তার ৫৮ শতক সম্পত্তি ফেরত লাভের হকদার।’


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ