• রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ০৬:০৬ অপরাহ্ন |

কার্যালয়ে ঢুকে কাউন্সিলর ও সহযোগীকে গুলি করে হত্যা

সিসি নিউজ ডেস্ক ।। সন্ত্রাসীদের গুলিতে আহত কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের ১৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি সৈয়দ মো. সোহেল মারা গেছেন। গুলিতে তাঁর সহযোগী হরিপদও নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় গুলিবিদ্ধ হয়েছেন আরও তিনজন।

সোমবার বিকেল সাড়ে চারটায় দিকে এই ঘটনা ঘটে। গুলিবিদ্ধরা কুমিল্লা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

স্থানীয় লোকজন জানান, সোমবার বিকেল সাড়ে চারটার দিকে নগরীর পাথুরিয়া পাড়ায় কাউন্সিলরের অফিসে একদল মুখোশধারী এলোপাতাড়ি গুলি ছুড়তে থাকে। গুলিতে সোহেল সঙ্গে সঙ্গেই নিজের চেয়ার থেকে পড়ে যান। আওয়াজ শুনে আশপাশের মানুষ ঘটনাস্থলে গেলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। এ সময় তাদের গুলিতে কাউন্সিলর সোহেল, হরিপদ সাহা, সোহেল, বাদল, ও জুয়েল গুলিবিদ্ধ হন।

পরে স্থানীয় লোকজন আহত ব্যক্তিদের উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। এরপর রাত সাড়ে ৮টার দিকে চিকিৎসক কাউন্সিলর সোহেল ও হরিপদকে আনুষ্ঠানিকভাবে মৃত ঘোষণা করেন।

কাউন্সিলর সোহেল সুজানগর এলাকার শাহজাহান মিয়ার ছেলে। তাঁর স্ত্রী, দুই মেয়ে ও এক ছেলে রয়েছে। হরিপদ পাথুরিয়া পাড়ার মৃত মহন সাহার ছেলে।

এ ঘটনায় উত্তেজিত জনতা সুজানগর পূর্বপাড়ার কিছু দোকানপাট, বাড়িঘর ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করে। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসেন কুমিল্লা মহানগর যুবলীগের আহ্বায়ক ও জেলা পরিষদের প্যানেল মেয়র আব্দুল্লা আল মাহমুদ সহিদ, যুগ্ম আহ্বায়ক  কুসিক কাউন্সিলর হাবিবুর আল আমিন সাদী, কুসিক কাউন্সিলর মাসুদুর রহমান মাসুদসহ অন্য নেতারা। এ সময় তাঁরা সবাইকে শান্ত থাকতে ও আইন নিজের হাতে তুলে না নিতে অনুরোধ জানান।

কাউন্সিলর সোহেলের ভাগনে মোহাম্মদ হানিফ জানান, ‘সবাই আসরের নামাজ পড়ছিল। এ সময় প্রচণ্ড গোলাগুলির আওয়াজ শোনা যায়। দৌড়ে গিয়ে দেখি মামা রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে আছেন। আমি নিজে মামাকে কাঁধে করে বের করি।’

মহানগর আওয়ামী লীগের ১৭ নম্বর ওয়ার্ডের সাধারণ সম্পাদক হানিফ মিয়া জানান, কয়েকজন সন্ত্রাসী গুলি করে কাউন্সিলর সোহেলকে। পরে আহতাবস্থায় কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। তাদের গুলিতে কয়েকজন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।

কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ক্যাজুয়ালটি বিভাগের চিকিৎসক নাফিজ জানান, কাউন্সিলর সোহলকে সংকটাপন্ন অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়। তাঁর শরীরের বিভিন্ন অংশে গুলি লেগেছে।

কাউন্সিলর সোহেলসহ দুজন মারা যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক চিকিৎসক মো. মহিউদ্দিন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ