• সোমবার, ২৩ মে ২০২২, ১১:৫৫ অপরাহ্ন |

বিয়ের দাবিতে অনড় সেই তরুণী এখন কারাগারে

সিসি নিউজ ডেস্ক ।। বিয়ের দাবিতে রাজধানীর উত্তরা থেকে বরগুনায় আসা জামালপুরের সেই তরুণী শিখা আক্তার মৌকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তারের পর আদালতের মাধ্যমে তাঁকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। আজ শুক্রবার ভোরে বেতাগী থানার পুলিশ চান্দখালী এলাকায় যুবক মাহমুদুল হাসানের বাড়ি থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বেতাগী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহ আলম হাওলাদার।

ওসি শাহ আলম হাওলাদার বলেন, ‘গতকাল বৃহস্পতিবার চান্দখালী এলাকার বাসিন্দা মো. মোশাররফ হোসেন বাদী হয়ে জামালপুরের সরিষাবাড়ীর আবদুর রহিমের মেয়ে শিখা আক্তার মৌ নামের এক তরুণীসহ অজ্ঞাত আরও চার-পাঁচজনকে আসামি করে থানায় একটি মামলা করেছেন। ওই মামলায় সকালে চান্দখালী এলাকায় অবস্থান নেওয়া তরুণীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘এর আগে গত বুধবার বরগুনা মুখ্য বিচারিক হাকিম আদালত থেকে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার আদেশ দেওয়া হয়েছিল। ওই দিন সন্ধ্যায় আদালত থেকে আমরা আদেশের কপি পেয়েছিলাম।’

মামলার বাদী মোশারফ হোসেন বলেন, ‘গত ২৯ এপ্রিল ওই তরুণী বিয়ের দাবিতে আমার বাসায় এসে অবস্থান নিয়েছিল। এ সময় আমরা কেউ বাসায় ছিলাম না। খবর পেয়ে আমি বাসায় গেলে স্থানীয়দের সহায়তায় আমাদেরও অবরুদ্ধ করে রাখে। পরে গত মঙ্গলবার আইনজীবীর মাধ্যমে বরগুনা মুখ্য বিচারিক আদালতে আইনগত প্রতিকার চেয়ে একটি আবেদন করি। বরগুনার মুখ্য বিচারিক হাকিম আদালতের বিচারক মুহাম্মদ মাহবুব আলম আবেদন আমলে নিয়ে ওই দিনই বেতাগী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেন। পরে বৃহস্পতিবার বেতাগী থানায় একটি মামলা দায়ের করি।’

তিনি আরও বলেন, ‘শিখা আক্তার মৌকে আমি শর্ত দিয়েছিলাম তাঁর আগের বিয়ের তালাকনামাসহ বৈধ অভিভাবক নিয়ে আসতে। কিন্তু তিনি তা আনতে ব্যর্থ হয়েছেন। এখানে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া ছাড়া আমার উপায় ছিল না।’

এ বিষয়ে বরগুনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর ও বেতাগী সার্কেল) মেহেদি হাসান বলেন, ‘সুনির্দিষ্ট অভিযোগে থানায় মামলা হওয়ার পর আমরা আইনগত পদক্ষেপ নিয়েছি। শিখা আক্তার মৌ নামের ওই তরুণীকে আটক করে থানায় করা মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।’

উল্লেখ্য, গত ২৯ এপ্রিল বরগুনার বেতাগী উপজেলার চান্দখালীতে মাহমুদ হাসানের ভাড়া বাড়িতে বিয়ের দাবিতে অবস্থায় নেন জামালপুরের তরুণী শিখা আক্তার মৌ। ছেলে ও তাঁর বাবা-মা আত্মগোপনে থাকায় স্থানীয়রা গত ২ মে ওই বাড়ির তালা ভেঙে একটি কক্ষে ঢুকিয়ে দেন ওই তরুণীকে। একপর্যায়ে গত বৃহস্পতিবার (৫ মে) মাহমুদুল হাসানের বাবা মোশাররফ হোসেন ওই বাড়িতে আসেন এবং ওই তরুণীকে পুত্রবধূ বানাতে কিছু শর্ত দেন। এর মধ্যে ওই তরুণীর পুরোনো স্বামীকে তালাকের কাগজ এবং অভিভাবকদের নিয়ে আসার শর্ত দেন তিনি। কিন্তু এসব শর্ত পূরণে ব্যর্থ হন ওই তরুণী। এরপরই মাহমুদুলের বাবা আদালতের দ্বারস্থ হন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ