• রবিবার, ২৬ জুন ২০২২, ১০:৪১ অপরাহ্ন |
শিরোনাম :
পদ্মা সেতুর রেলিংয়ের নাট খোলা বায়েজিদ আটক নীলফামারী জেলা শিক্ষা অফিসার শফিকুল ইসলামের শ্বশুড়ের ইন্তেকাল সৈয়দপুর সরকারি বিজ্ঞান কলেজের গ্রন্থাগারের মূল্যবান বইপত্র গোপনে বিক্রি ফেনসিডিলসহ সেচ্ছাসেবক লীগের নেতা গ্রেপ্তার এ সেতু আমাদের অহংকার, আমাদের গর্ব: প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ-ভারতে রেল যোগাযোগ বন্ধ থাকবে ৮ দিন পদ্মা সেতুর উদ্বোধন বাংলাদেশের জন্য এক গৌরবোজ্জ্বল ঐতিহাসিক দিন: প্রধানমন্ত্রী পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যেতে মানতে হবে যেসব নির্দেশনা সৈয়দপুরে বিস্কুট দেয়ার প্রলোভনে শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ গণমানুষের সমর্থনেই পদ্মা সেতু নির্মাণ সম্ভব হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী

ঝড়ে লন্ড ভন্ড নীলফামারী

সিসি নিউজ ।। দুই সপ্তাহ আগেই কাল বৈশাখী ঝড়ে ঘরবাড়ি হারিয়ে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল নীলফামারী জেলার কয়েক হাজার মানুষ। আর সেই ধকল কাটিয়ে উঠতে না উঠতেই আবারো ঝড়ের কবলে নীলফামারীবাসী। বুধবার (১৮ মে) রাত সাড়ে ১০টার দিকে শুরু হয়ে প্রায় ৪০ মিনিট স্থায়ী এ ঝড়ে পাঁচ শতাধিক ঘরের টিনের চালা উড়ে গেছে। সহস্রাধিক গাছ উপড়ে পড়েছে। শত শত হেক্টর উঠতি ইরি-বোরো খেতের ফসল নষ্ট হয়েছে। এছাড়া আম ও লিচুর ক্ষতি হয়েছে ব্যাপক।

এদিকে ঝড়ে বিভিন্ন স্থানে বিদ্যুতের খুঁটি উপড়ে পড়ায় গোটা জেলায় প্রায় ১২ ঘন্টা বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ ছিল। তবে ঝড়ে এখন পর্যন্ত কোথাও আহতের খবর পাওয়া যায়নি। ঘরবাড়ি হারিয়ে অনেকেই খোলা আকাশের নিচে অবস্থান নিয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকালে সরেজমিনে জেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, হটাৎ এই ঝড়ে জেলা শহর সহ বিভিন্ন স্থানে উপড়ে ও ভেঙে পড়ে আছে বড় বড় গাছ। উপড়ে পড়া ও ভেঙ্গে যাওয়া গাছ অপসারণে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিস। অনেকেই নিজ উদ্যোগে গাছ অপসারনে কাজ করছে। এদিকে কয়েক দিনের বৃষ্টির কারনে ফসলের জমিতে পানি জমলেও গত রাতের ঝড়ে ফসলের আরো ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন কৃষকেরা।

জেলা সদরের সংগলশী ইউনিয়নের কৃষক আজিজার রহমান জানান, বৃহস্পতিবার ধান কেটে ঘরে তোলার প্রস্তুতি নিয়েছিলেন তিনি। তবে গত রাতের ঝড়ে মাটিতে নুয়ে পড়েছে প্রায় ৩ বিঘা জমির ধান গাছ। শোয়ার ঘরের টিনের চালা প্রায় ৩০ ফুট উড়ে নিয়ে ধান খেতে মুখ থুপড়ে পড়ে রয়েছে। একই এলাকার কৃষক শফিকুল ইসলাম বলেন, রাতের ঝড়ে আমার চারটি ঘরের চালা উড়ে গেছে। ছেলে-মেয়েকে নিয়ে অনেক কষ্টে খোলা আকাশে রাত কাটিয়েছি।

ইটাখোলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়্যারম্যান হেদায়েত আলী শাহ ফকির বলেন, ইউনিয়নের কয়েকটি ওয়ার্ডে কাঁচা ঘর-বাড়ি ও ফসলের ক্ষতি হয়েছে। গ্রামীণ সড়কের ধারে শতশত গাছ ভেঙ্গে ও উপড়ে পড়েছে। তবে এখন পর্যন্ত ক্ষয়ক্ষতির সঠিক পরিমাণ নির্ণয় করা সম্ভব হয়নি। ক্ষয়ক্ষতি নিরুপনে ওয়ার্ড সদস্যরা কাজ করছেন।

সৈয়দপুর ফাইলেরিয়া হাসপাতাল পরিচালনা কমিটির সভাপতি মো. জিকো আহমেদ সিসি নিউজকে জানান, এখানে রাত ১২টার দিকে শুরু হয় ঝড়। ঝড়ে হাসপাতালের সীমানা প্রাচীর সংলগ্ন দুটি গাছ উপড়ে পড়ে হাসপাতালের এ্যাম্বুলেন্সটির ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এ সময় পাশে থাকা ব্যাক্তি মালিকানাধীন একটি কার চাপা পড়ে ভেঙ্গে যাওয়া গাছের চাপে।

নীলফামারী কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরে উপ সহকারী পরিচালক আবু বক্কর সিদ্দিক জানান, ঘরে তোলার জন্য প্রস্তুত ফসলের জমিতে কয়েক দিনের বৃষ্টিতে বিভিন্ন এলাকায় পানি জমে ছিল। আর গত রাতের ঝড়ে আরো ক্ষতি হওয়ার খবর পেয়েছি। তাৎক্ষণিকভাবে ফসলের ক্ষয়ক্ষতির পরিমান নির্ণয় করা যায়নি। তবে কৃষি বিভাগের লোকজন মাঠে গিয়ে ক্ষতির পরিমাণ নির্ণয়ের কাজ করছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ