• শনিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২২, ০৩:২৭ পূর্বাহ্ন |

একটি কুঁড়ে ঘরও দেখলাম না- তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী

সিসি নিউজ।। তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, ঢাকা থেকে নীলফামারীর জলঢাকা আসার পথে রাস্তার দু’ধারে একটি কুঁড়ে ঘরও দেখলাম না। এখন আর কুঁড়ে ঘর নিয়ে কবিতা লেখা যাবে না। কবিতা লিখতে হলে পদ্মাসেতু নিয়ে লিখতে হবে। বিএনপির উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে কোটি কোটি টিকা দেওয়া হয়েছে। শুধু প্রথম ডোজেই নয়, দ্বিতীয় ও তৃতীয় ডোজ দেওয়া হয়েছে, বিএনপি চাইলে চতুর্থ ডোজও দেয়া হবে। ‘কালকে দেখলাম বিএনপি হারিকেন নিয়ে মিছিল করছে। আমার হঠাৎ মনে হলো বিএনপির নির্বাচনী প্রতীক কী বদলে গেল কিনা, হারিকেন হয়ে গেল নাকি? আর জনগণ আশঙ্কায় আছে হারিকেন কখন আবার পেট্রলবোমা হয়ে যায়। কারণ তারাতো মানুষের ওপর পেট্রল বোমা নিক্ষেপ করেছে। শনিবার (৩০ জুলাই) বেলা তিনটার দিকে উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সাবেক এমপি অধ্যাপক গোলাম মোস্তফার সভাপতিত্বে, জলঢাকা সরকারী কলেজ মাঠে উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। এসময় বিএনপির উদ্দেশ্যে তিনি আরো বলেন,‘দেশে যথা সময়ে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। আমরা চাই সব দলের অংশগ্রহনে একটি উৎসবমুখর পরিবেশে নির্বাচন হউক। আমরা আশা করি যে, নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহন করবে। তবে নির্বাচনের ট্রেন কারো জন্য দাঁড়িয়ে থাকবে না। ২০১৪ সালের ট্রেন যেমন কারো জন্য দাঁড়িয়ে ছিল না, ২০১৮ সালেও নির্বাচনের ট্রেন কারো জন্য দাঁড়িয়ে ছিল না। সুতরাং ২০২৪ সালের শুরুতে যে নির্বাচন হবে সেই নির্বাচনি ট্রেনটিও কারো জন্য দাঁড়িয়ে থাকবে না। ২০১৮ সালে সব দলের ঐক্য করে তারা নির্বাচনে অংশগ্রহন করেছিল এবং সেই নির্বাচনে মাত্র পাঁচটি আসন পেয়েছিল। এজন্য তারা নির্বাচনকে ভয় পায়। সে জন্যেই তারা নির্বাচন নিয়ে নানা ধরণের বিভ্রান্তি ছড়ানোর অপচেষ্টা চালাচ্ছে। আমি বিএনপিকে অনুরোধ জানাবো এই ধরণের বিভ্রান্তি না ছড়িয়ে বরং জনগণের কাছে যাওয়ার জন্য। আগামী নির্বাচনেও আওয়ামী লীগের বিজয় নিশ্চিৎ উল্লেখ করে তিনি বলেন,‘বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সমগ্র দেশে সুসংগঠিত। আমাদের দলে যেভাবে তৃণমূল পর্যায়ে নেতৃত্বকে মূল্যায়ন করে তাদেরকে বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃত্বের আসনে বসানো হচ্ছে। আমরা অত্যন্ত সুসংগঠিত,আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি দল সারাদেশে যেভাবে সুসংগঠিত, আমি সারা দেশ ঘুরেছি এতে আমার যে উপলদ্ধি আগামী নির্বাচনেও ইনশাআল্লাহ জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বিজয় হবে। সে কারণে বিএনপি শঙ্কিত।’ সম্মেলনের উদ্বোধন করেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি দেওয়ান কামাল আহমেদ। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন শফিক, উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, কার্যনির্বাহী সদস্য সাবেক এমপি অ্যাডভোকেট হোসনে আরা লুৎফা ডালিয়া, সাবেক এমপি অ্যাডভোকেট সফুরা বেগম রুমি, কার্যনির্বাহী সদস্য আব্দুল আউয়াল শামীম ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মমতাজুল হকসহ কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতৃবৃন্দ। পরে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রথম অধিবেশনে জলঢাকা উপজেলা আওয়ামীলীগের কমিটি বিলুপ্ত এবং দ্বিতীয় অধিবেশন স্থগিত ঘোষনা করেন। উল্লেখ্য যে, ২০০৪ সালের ২৩ নভেম্বর সর্বশেষ সম্মেলন হয় উপজেলাটিতে। এরপর দীর্ঘ ১৮ বছর পর সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ