• মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৭:৪৭ পূর্বাহ্ন |

প্রশ্ন ফাঁস: দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডের আরও দুই পরীক্ষার প্রশ্নপত্র বাতিল

সিসি নিউজ ।। দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডের অধীন চলমান এসএসসি পরীক্ষার আরও দুই বিষয়ের প্রশ্নপত্র বাতিল করা হয়েছে। এই দুই বিষয় হলো জীব বিজ্ঞান ও উচ্চতর গণিত। আজ বৃহস্পতিবার রাতে দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো. কামরুল ইসলামের সই করা বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, চলমান এসএসসি পরীক্ষার স্থগিত চারটি বিষয় যথাক্রমে গণিত (আবশ্যিক), পদার্থ বিজ্ঞান, কৃষি শিক্ষা, রসায়ন এবং আরও দুটি বিষয়— জীব বিজ্ঞান ও উচ্চতর গণিতসহ মোট ছয়টি বিষয়ের এর আগে সরবরাহকৃত প্রশ্নপত্র বাতিল করা হলো।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, আগামী ২৪ সেপ্টেম্বরের মধ্যে ওই বাতিলকৃত প্রশ্নপত্রগুলো ট্রেজারি অফিসগুলোতে কঠোর নিরাপত্তার সঙ্গে পৃথক ট্রাঙ্কে সংরক্ষণের জন্য অনুরোধ করা হলো।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো. কামরুল ইসলাম বলেন, ‘নতুন দুই বিষয়ের পরীক্ষার তারিখ ঠিক থাকবে। আমরা শুধু পরীক্ষার প্রশ্নপত্র বাতিল করেছি। নতুন প্রশ্ন প্রণয়ন করে এ দুই বিষয়ের পরীক্ষা পূর্ব নির্ধারিত তারিখ অনুযায়ী নেওয়া হবে।’

বোর্ড চেয়ারম্যান আরও বলেন, ‘যেহেতু মোট ছয়টি বিষয়ের প্রশ্নফাঁসের অভিযোগ উঠেছে তাই আমরা এ ব্যবস্থা নিয়েছি।’

এর আগে গতকাল বুধবার প্রশ্নফাঁসের অভিযোগে চার বিষয়ের পরীক্ষা স্থগিত করা হয়। এ বিষয়গুলো হলো— গণিত, পদার্থবিজ্ঞান, কৃষিবিজ্ঞান ও রসায়ন। আজ বৃহস্পতিবার এ চার বিষয়ের সংশোধিত রুটিন প্রকাশ করা হয়েছে।

সংশোধিত রুটিন অনুযায়ী, গণিত পরীক্ষা হবে ১০ অক্টোবর সোমবার, ১১ অক্টোবর মঙ্গলবার হবে কৃষিশিক্ষা, রসায়ন পরীক্ষা হবে ১৩ তারিখ বৃহস্পতিবার এবং ১৫ তারিখ বুধবার পদার্থবিজ্ঞান। সব পরীক্ষাই সকাল ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত।

এ ছাড়া ব্যবহারিক পরীক্ষাগুলো ১০ অক্টোবর থেকে ১৫ অক্টোবর পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও নতুন সময়সূচি অনুযায়ী সেগুলো ১৬ অক্টোবর থেকে ২০ অক্টোবরের মধ্যে অনুষ্ঠিত হবে।

এর আগে যশোর শিক্ষা বোর্ডের অধীন এসএসসি ও সমমানের বাংলা দ্বিতীয় পত্রের বহুনির্বাচনী (এমসিকিউ) পরীক্ষা স্থগিত করা হয়, যা আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত হবে।

সাধারণত এসএসসি পরীক্ষা ফেব্রুয়ারিতে শুরু হয়। কিন্তু করোনা পরিস্থিতির কারণে নির্ধারিত সময়ে এই পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব হয়নি। পিছিয়ে যাওয়া এই পরীক্ষা গত ১৯ জুন শুরু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সিলেটসহ কয়েকটি জেলায় ব্যাপক বন্যা দেখা দিলে গত ১৭ জুন পরীক্ষা স্থগিত করে সরকার। ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হয়েছে পরীক্ষা। এর আগের বছর নয় মাস পিছিয়ে নভেম্বরে সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে তিন বিষয়ে এ পরীক্ষা নেওয়া হয়।

এবারের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় মোট পরীক্ষার্থী ২০ লাখ ২১ হাজার ৮৬৮ জন। ৩ হাজার ৭৯০টি কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হচ্ছে এই পরীক্ষা। এতে অংশ নিয়েছে ২৯ হাজার ৫৯১টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের পরীক্ষার্থীরা। এই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে পুনর্বিন্যস্ত পাঠ্যসূচি অনুযায়ী। ধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা, তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি, বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় এবং বিজ্ঞান—এসব বিষয়ের পরীক্ষা না নিয়ে সাবজেক্ট ম্যাপিংয়ের মাধ্যমে মূল্যায়ন করা হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ

error: Content is protected !!